ঢাবি বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেমোরিয়াল স্বর্ণপদক ও বৃত্তি পেলেন ৭ ছাত্রী

ঢাবি বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেমোরিয়াল স্বর্ণপদক ও বৃত্তি পেলেন ৭ ছাত্রী

67
0
SHARE

¯œাতক সম্মান পরীক্ষায় অসাধারণ ফলাফল অর্জন করায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কলা অনুষদভুক্ত উর্দু বিভাগের ছাত্রী ফারহানা ইয়াছমিন “বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেমোরিয়াল স্বর্ণপদক” লাভ করেছেন। এছাড়া, বিভিন্ন বিভাগের ৬জন ছাত্রীকে “বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেমোরিয়াল মেধা বৃত্তি” প্রদান করা হয়েছে। বৃত্তিপ্রাপ্তরা হলেন- সুমনা আখতার সুমি (মার্কেটিং), নাসরিন জেবিন (শান্তি ও সংঘর্ষ অধ্যয়ন), জান্নাতুল ফেরদৌস আইরিন (মার্কেটিং), মোছা: মুশফিকা জাহান (তথ্যবিজ্ঞান ও গ্রন্থাগার ব্যবস্থাপনা), শাওলিন শাওন  টেলিভিশন, চলচ্চিত্র ও ফটোগ্রাফি) এবং উম্মে সালমা (ফিন্যান্স)। গতকাল ৮ আগস্ট ২০১৮ বুধবার সন্ধ্যায় বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হল মিলনায়তনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে কৃতী ছাত্রীদের হাতে স্বর্ণপদক ও বৃত্তির চেক তুলে দেন। বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৮৮তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেমোরিয়াল ট্রাস্ট ফান্ডের উদ্যোগে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবসহ ১৫ই আগস্টে মর্মান্তিক হত্যাকাÐের শিকার বঙ্গবন্ধুর পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। পরে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব স্মরণে প্রকাশিত স্মারক সংকলন-এর মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যের শুরুতেই উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতার অমর স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, বঙ্গবন্ধু বঙ্গবন্ধু হয়েছেন, এর পেছনে মহীয়সী নারী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের অনন্যসাধারণ ভূমিকা ছিল। বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে ঘরের মধ্যে থেকে তিনি পরামর্শ, সাহস, অণুপ্রেরণা ও সকল কাজের সহযোগিতা দিয়ে গেছেন। নতুন প্রজন্মের ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে উপাচার্য বলেন, তোমাদের মাঝে নতুন চেতনাবোধ, দর্শনের এক উদ্দীপনা ও অণুপ্রেরণা হলো বঙ্গমাতার জীবন ও আদর্শ। বঙ্গমাতার কর্মপ্রয়াস ও আদর্শ অনুসরণ করে শিক্ষা ও কর্মক্ষেত্রে একজন ভালো মানুষ হতে শিক্ষার্থীদের প্রতি উপাচার্য আহŸান জানান।

“জেন্ডার প্রেক্ষিতে বঙ্গমাতার জীবনাদর্শন” শীর্ষক বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব স্মারক বক্তৃতায় বিশিষ্ট কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন ইতিহাসের ধারাবাহিকতায় সমাজে নারীর অবস্থান সম্পর্কে বিশদভাবে আলোকপাত করেন। বঙ্গমাতার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, বঙ্গমাতা বাংলাদেশের ইতিহাসের প্রেক্ষাপটে একজন সাহসী নারী। দুর্বার সাহসে ইতিহাসের ক্রান্তিলগ্নে তিনি দিয়েছিলেন দূরদর্শী চিন্তার বার্তা। স্মারক বক্তা আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু ও  বঙ্গমাতা আপন আলোয় জেন্ডার তত্ত¡কে নিজেরে জীবনে বিস্তার ঘটিয়েছিলেন। দু’জনের দূরদর্শী চেতনাবোধ সমাজ আকক্সক্ষাার স্বপ্ন পূরণ ঘটায়। এই প্রজন্ম বঙ্গমাতার কর্মযোগ থেকে চিন্তার আলো দেখে নেবে।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ এবং ট্রাস্ট ফান্ডের সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. কামাল উদ্দীন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জন্মবার্ষিকী উদ্যাপন কমিটির আহŸায়ক শাহানা নাসরীন এবং ধন্যবাদ জ্ঞাপন ও সমাপনী বক্তব্য প্রদান করেন হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. জাকিয়া পারভীন।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY