ঢাবি-এ হরপ্রসাদ-শহীদুল্লাহ্ স্মারক বক্তৃতা অনুষ্ঠিত

ঢাবি-এ হরপ্রসাদ-শহীদুল্লাহ্ স্মারক বক্তৃতা অনুষ্ঠিত

142
0
SHARE

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দিবস ও বাংলা বিভাগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদ্যাপন উপলক্ষ্যে বাংলা বিভাগের উদ্যোগে গতকাল ১লা জুলাই ২০১৮ রবিবার বিকেলে নাট-মÐলে ‘হরপ্রসাদ-শহীদুল্লাহ্ স্মারক বক্তৃতা-২০১৮’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান। স্মারক বক্তৃতা প্রদান করবেন বাংলা বিভাগের অ্যালামনাই জাতীয় অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান। এতে সভাপতিত্ব করবেন জাতীয় অধ্যাপক ও বিভাগের অ্যালামনাই অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলাম।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস ও বাংলা বিভাগের ইতিহাস এক ও অভিন্ন। স্মারক বক্তৃতায় হরপ্রসাদ শাস্ত্রী ও মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ সম্পর্কে যেসব তথ্য উঠে এসেছে তা থেকে যে শিক্ষা আমরা পাই তা হলো মূল্যবোধ। তাঁদের জীবনের মূল্যবোধ থেকে শিক্ষা নিয়ে তরুণ প্রজন্ম স্ব স্ব জীবনে প্রয়োগ করবে। সেই সাথে এই মাপের মানুষগুলোর মূল্যবোধ যেন আমাদের মাঝে জাগ্রত হয় এবং আমরা যেন ভালো মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে পারি- এটি হোক আমাদের আজকের প্রত্যাশা।

স্মারক বক্তৃতায় জাতীয় অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান বলেন, শুধু শিক্ষাদানেই নিজেদের কার্যক্রম সীমাবদ্ধ রাখেননি হরপ্রসাদ শাস্ত্রী ও মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ্। বাংলা ভাষা ও সাহিত্য নিয়ে গবেষণা ও সম্পাদনার মাধ্যমে তাঁরা ভাষাকে সমৃদ্ধ করেছেন। হরপ্রসাদ শাস্ত্রী ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের প্রথম অধ্যক্ষ। বাংলা সাহিত্যের প্রাচীনতম নিদর্শন চর্যাপদকে সবার গোচরে এনেছেন তিনি। আর বিভাগের প্রথম প্রভাষক ছিলেন মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ্। ১৯৪৭ সালের জুলাই মাসেই বাংলাকে পাকিস্তানের অন্যতম রাষ্ট্রভাষা রূপে গ্রহণের দাবি জানিয়েছিলেন তিনি। তিনি আরও বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার সময় সংস্কৃতি ও বাঙ্গালা বিভাগের অধ্যাপক ও অধ্যক্ষ হয়ে আসেন হরপ্রসাদ শাস্ত্রী। নতুন বিভাগ স্থাপন করতে যেসব কাজ করা আবশ্যক , তার সবই তিনি করেছিলেন সানন্দে, শিক্ষকতায় খুব সফলতাও লাভ করেছিলেন।

এতে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন বাংলা বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. ভীষ্মদেব চৌধুরী। পরে বিভাগের শিক্ষার্থীদের পরিবেশনায় এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY