জাতীয় অধ্যাপক মুস্তাফা নূরউল ইসলাম-এর মৃত্যুতে ঢাবি উপাচার্যের শোক

জাতীয় অধ্যাপক মুস্তাফা নূরউল ইসলাম-এর মৃত্যুতে ঢাবি উপাচার্যের শোক

30
0
SHARE

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র এবং জাতীয় অধ্যাপক মুস্তাফা নূরউল ইসলাম-এর মৃত্যুতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

আজ ১০ মে ২০১৮ বৃহস্পতিবার এক শোকবাণীতে উপাচার্য বলেন, বাহান্নর ভাষা আন্দোলন থেকে মুক্তিযুদ্ধ বাঙালির প্রায় প্রতিটি আন্দোলনে মুস্তাফা নূরউল ইসলাম সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেছিলেন। ১৯৭১ সালে লন্ডনে পিএইচডি করার সময় মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে জনমত গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন তিনি। একজন শিক্ষক, গবেষক সর্বোপরি বাংলাদেশের সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক অগ্রযাত্রায় তাঁর অবদান দেশবাসীর কাছে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে।

উপাচার্য মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনা করেন এবং তাঁর পরিবারের শোক-সন্তপ্ত সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

নূরউল ইসলামের জন্ম ১৯২৭ সালে ১ মে, বগুড়ায়। তিনি কলকাতার সুরেন্দ্রনাথ কলেজে গ্র্যাজুয়েশনের পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমএ পাস করেন। পরে লন্ডন ইউনিভার্সিটির প্রাচ্যভাষা ও সংস্কৃতি কেন্দ্র সোয়াস থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন তিনি। ‘সাহিত্যিক’ ও ‘সুন্দরম’ সাহিত্য পত্রিকার সম্পাদক মুস্তাফা নূরউল ইসলাম সাহিত্যে অবদানের জন্য একুশে পদক ও স্বাধীনতা পদক পেয়েছেন।

মুস্তাফা নূরউল ইসলামের কর্মজীবনের শুরু সাংবাদিকতা দিয়ে, কিন্তু পরবর্তীতে তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতার মাধ্যমে কর্মজীবন শেষ করেন। তিনি শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক, বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক, জাতীয় জাদুঘর পরিচালনা পর্ষদের তিন মেয়াদের চেয়ারম্যান, নজরুল ইনস্টিটিউটের ট্রাস্টি বোর্ডের তিন মেয়াদের সদস্যসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন।

মুস্তাফা নূরউল ইসলামের ৩০টির বেশি প্রবন্ধ সংকলন ও গবেষণা গ্রন্থ রয়েছে। তাঁর বইয়ের মধ্যে ‘সমকালে নজরুল ইসলাম’, ‘সাময়িকপত্রে জীবন ও জনমত’, ‘আমার বাংলা’, ‘বাঙালির আত্মপরিচয়’, ‘সেরা সুন্দরম’, ‘পূর্বমেঘ’, ‘আমাদের মাতৃভাষার চেতনা ও ভাষা আন্দোলন’, ‘আবহমান বাংলা’, ‘মুসলিম বাংলা সাহিত্য’, ‘সময়ের মুখ: তাহাদের কথা’ ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য।

টেলিভিশনে উপস্থাপনার জন্যও অনেকের কাছে পরিচিত মুখ ছিলেন মুস্তাফা নূরউল ইসলাম। বিটিভিতে ‘মুক্তধারা’ অনুষ্ঠানটি একাধারে ১৫ বছর উপস্থাপনা করেন তিনি।

উল্লেখ্য, অধ্যাপক মুস্তাফা নূরউল ইসলাম বার্ধক্যজনিত কারণে গতকাল ৯ মে ২০১৮ বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় নিজ বাসায় ইন্তেকাল করেন। তাঁর বয়স হয়েছিল ৯১ বছর। মৃত্যুকালে তিনি দুই ছেলে, দুই মেয়ে, আত্মীয়স্বজন সহ বহু গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY