‘দক্ষিণ এশীয় সমাজবিজ্ঞান’ শীর্ষক আন্তর্জাতিক সম্মেলন উদ্বোধন

‘দক্ষিণ এশীয় সমাজবিজ্ঞান’ শীর্ষক আন্তর্জাতিক সম্মেলন উদ্বোধন

138
0
SHARE

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ৬০ বছর পূর্তি উপলক্ষে দু’দিনব্যাপী ‘দক্ষিণ এশীয় সমাজবিজ্ঞান’ শীর্ষক আন্তর্জাতিক সম্মেলন গতকাল ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮ শুক্রবার সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে শুরু হয়েছে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. নাসরীন আহমাদ। এছাড়াও সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বরেণ্য সমাজবিজ্ঞানী অধ্যাপক কে এ এম সা’দউদ্দিন ও অধ্যাপক অনুপম সেন। বিভাগীয় চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. নেহাল করিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এতে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন অধ্যাপক ড. মনিরুল ইসলাম ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. সাদেকা হালিম।
সম্মেলনে ‘কলোনিয়ালিজম, কোল্ড ওয়ার এন্ড গেøাবালাইজেশন: সিচুয়েটিং সোসিওলজি ইন সাউথ এশিয়া’ শীর্ষক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন উপমহাদেশের প্রথিতযশা সমাজবিজ্ঞানী ও ‘ইন্টারন্যাশনাল সোসিওলজিকাল এসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি পদ্মভূষণ অধ্যাপক টি. কে. উমেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, শুধু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নয়  সমাজের উন্নয়নে ঐতিহ্যবাহী এই বিভাগের ভূমিকা অপরিসীম। ‘দক্ষিণ এশীয় সমাজবিজ্ঞান’ ইস্যুটি সমসাময়িক ও গুরুত্বপূর্ণ। সমাজের বিভিন্ন শ্রেণির অংশগ্রহণ ও যথাযথ ব্যবহারে সমাজবিজ্ঞান গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তরুণদের অংশগ্রহণের মাধ্যমে সমাজের বিভিন্ন পরিবর্তনসহ নারীর ক্ষমতায়ন এবং সমাজে এর প্রভাব সমাজবিজ্ঞানের উন্নয়নের অংশ। জলবায়ু পরিবর্তন, দারিদ্র বিমোচন, সমঅধিকার প্রতিষ্ঠা, সামাজিক মূল্যবোধ, সম্পর্ক ও সংস্কৃতি কোনকিছুই সমাজবিজ্ঞান চর্চার বাইরে নয়। দ্রæত পরিবর্তনশীল বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে সমাজবিজ্ঞানের কৌশল অবলম্বন করে টেকসই উন্নয়নের মাধ্যমে বাংলাদেশকে একটি সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশে পরিণত করার জন্য নীতিনির্ধারকদের প্রতি স্পিকার আহŸান জানান।
প্রো-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. নাসরীন আহমাদ গৌরবময় মুক্তিযুদ্ধে সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থী যাঁরা শহীদ হয়েছেন তাদের স্মরণ করে বলেন, ২০২১ সালে গৌরবময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ১০০বছর পূর্ণ করবে। সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ৬০ বছর পূর্তি সেই গৌরবেরই একটি অংশ। সমাজবিজ্ঞানে বিস্তর অবদান রাখা ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাজবিজ্ঞান বিভাগের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক নাজমুল করিম ও অধ্যাপক রঙ্গলাল সেন’কে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করে তিনি বলেন, ক্রিমিনোলজি, ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট এন্ড ভালনারেবিলিটি স্টাডিজসহ আরো অনেক বিষয়ের উৎপত্তি হয়েছে সমাজবিজ্ঞান বিভাগ থেকে।

উল্লেখ্য, দেশ-বিদেশের সমাজবিজ্ঞান গবেষকগণ দু’দিনব্যাপী এই সম্মেলনে ৮টি সেশনে ৩২টি প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন ।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY