ঢাবি-এ কেন্দ্রীয় বার্ষিক নাট্যোৎসব

ঢাবি-এ কেন্দ্রীয় বার্ষিক নাট্যোৎসব

29
0
SHARE

‘আমরা ফুরিয়ে যাই তোমাদের তরে অফুরান হতে’ এই প্রতিপাদ্য নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থিয়েটার এন্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজ বিভাগের ব্যবস্থাপনা ও প্রযোজনায় ১২তম কেন্দ্রীয় বার্ষিক নাট্যোৎসব শুরু হয়েছে। গতকাল ১১ ডিসেম্বর ২০১৭ সোমবার সন্ধ্যায় ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র মিলনায়তনে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান ৮দিনব্যাপী এই উৎসবের উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রো-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. নাসরীন আহমাদ, কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আবু মো. দেলোয়ার হোসেন এবং মার্কেন্টাইল ব্যাংকের চেয়ারম্যান এ. কে. এম. সাহিদ রেজা। সভাপতিত্ব করেন বিভাগীয় চেয়ারম্যান ড. আহমেদুল কবির।
উৎসবে বিভাগের পক্ষ থেকে প্রখ্যাত অভিনেতা, নির্দেশক, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও মুক্তিযোদ্ধা আলী যাকেরকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করা হয়।
প্রধান অতিথি আসাদুজ্জামান নূর স্মৃতিচারণ করে বলেন, ‘চিত্রালীতে কাজ করার সময় আলী যাকেরের সাথে আমার প্রথম পরিচয়। আলী যাকের আমার শিক্ষাগুরু, তার হাত ধরেই আমি মঞ্চে এসেছি।’ তিনি বলেন বিশ্ববিদ্যালয়গুলো সংস্কৃতি চর্চার প্রাণকেন্দ্র হওয়া উচিৎ। ’৭৫ এ জাতির পিতার নির্মম হত্যাকান্ডের পর সংস্কৃতি অঙ্গণে অন্ধকার নেমে এসেছিল। আমাদের বিভিন্ন লড়াই সংগ্রামে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সংস্কৃতি চর্চার একটি বড় ভূমিকা রয়েছে। সৃজনশীল কাজের মধ্য দিয়েই দেশ বা সমাজ এগিয়ে যায়। সংস্কৃতি মন্ত্রী বলেন, সৃজনশীল কাজ করতে হলে সংস্কৃতি চর্চার সাথে সম্পৃক্ত থাকা জরুরী।
উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, নাট্যাঙ্গনের মানুষের সৃজনশীলতা থাকে এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা সেই সৃজনশীলতার পরিবেশে অবস্থান করে সংস্কৃতির কার্যক্রমকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। ‘আমরা ফুরিয়ে যাই তোমাদের তরে অফুরান হতে’ বিজয়ের মাসে এই প্রতিপাদ্য নির্বাচন করায় আয়োজকদের উপাচার্য ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, যেসব নাটকের বক্তব্য,সংলাপ বা থিম অর্থবহ হয় সে নাটকগুলো অমরত্ব পায়। থিয়েটার এন্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজ বিভাগের শিক্ষার্থীদের নির্দেশিত নাটকগুলোও স্থায়ীত্ব লাভ করবে বলে উপাচার্য আশা প্রকাশ করেন।
তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বিশেষ সম্মাননা প্রাপ্ত ব্যক্তিত্ব আলী যাকের বলেন, কিছু কিছু আহবানে সাড়া দিতে পারলে চোখ ভিজে যায়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থিয়েটার এন্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজ বিভাগের দেয়া সম্মাননার চেয়ে বড় পাওয়া আর কিছু নেই। জীবনে অনেক সম্মাননা পেলেও এটি তুলনাহীন। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পসের স্মৃতিচারণ করে আবেগ আপ্লুত আলী যাকের বলেন, ‘মাতৃসম বিশ্ববিদ্যালয়ে এসে সম্মাননা গ্রহণ ও মঞ্চে এসে কিছু বলতে পারায় আমি কৃতার্থ।’
উল্লেখ্য, উৎসবে বিভাগের স্নাতক সমাপনী সেমিস্টারের শিক্ষার্থীদের নির্দেশিত ১৭টি নাটক মঞ্চস্থ হবে।  উদ্বোধনী সন্ধ্যায় ‘চন্ডালিকা’ ও ‘নীল দংশন’ মঞ্চস্থ হয়। এবারের উৎসবে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, কাজী নজরুল ইসলাম, সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ, আহমেদ ছফা, আখারুজ্জামান ইলিয়াস, সেলিম আল দীন, আব্দুল্লাহ আল মামুন, বাদল সরকার, মমতাজউদ্দিন আহমদ প্রমূখ কালজয়ী লেখকের সাহিত্যকর্মের নাট্যরূপ উপস্থাপিত হবে। প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬:০০টায় নাটক মঞ্চস্থ হবে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY