ঢাবি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের ৬৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন : ৬ ইমেরিটাস অধ্যাপককে সম্মাননা প্রদান

ঢাবি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের ৬৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন : ৬ ইমেরিটাস অধ্যাপককে সম্মাননা প্রদান

25
0
SHARE

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন (ডুয়া)-এর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছয় ইমেরিটাস অধ্যাপকসহ সাতজনকে সম্মাননা প্রদান করা হয়েছে। গতকাল ১ অক্টোবর ২০১৭ বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনের অ্যালামনাই ফ্লোরে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তাদের এ সম্মাননা দেওয়া হয়।

সম্মাননাপ্রাপ্তরা হলেন- শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক ড. সুলতানা সারোয়াত আরা জামান, দর্শন বিভাগের অধ্যাপক ড. আবদুল মতীন, ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক ড. এ এফ সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান, উইমেন অ্যান্ড জেন্ডার স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক ড. নাজমা চৌধুরী, ক্লিনিক্যাল ফার্মেসী ও ফার্মাকোলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. এ কে আজাদ চৌধুরী এবং ঢাবি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বিচারপতি মোহাম্মাদ ইব্রাহীম (মরণোত্তর)। প্রত্যেককে স্বর্ণপদক ছাড়াও একটি ক্রেস্ট এবং উত্তরীয় পরিয়ে সম্মাননা জানানো হয়।

অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এ কে আজাদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অর্থ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব রঞ্জন কর্মকার।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, সারা বিশ্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নে অ্যালামনাইরা অনেক দায়িত্ব পালন করেন। শুধু অবকাঠামোগত উন্নয়ন নয়, জ্ঞানের বহুমুখী শাখায় তাঁরা নানামাত্রিক দায়িত্ব পালন করতে পারেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাইয়ের আজকের এই গুণীজন সম্মাননা সে রকমই একটি উদ্যোগ। আশা করি ভবিষ্যতেও এ ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, এখানে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের সম্মাননা জানানো হয়েছে। তাঁদের সবার ‘কপিরাইট সম্মান’ রয়েছে। তাঁদের মাধ্যমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বিশ্বসমাজে পরিচিতি লাভ করেছে।

অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এ কে আজাদ বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শুরু থেকেই শিক্ষা, জ্ঞান-বিজ্ঞান চর্চায়, রাজনৈতিক দীক্ষায় আর সাংস্কৃতিক জাগরণে উদ্বুদ্ধ করতে অনন্য ভূমিকা রেখেছেন এই বিশ্ববিদ্যালয়ের মানবতাবাদী শ্রদ্ধেয় শিক্ষকেরা।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY