ঢাবি-এ ২৭তম নাজমা জেসমিন চৌধুরী স্মারক বক্তৃতানুষ্ঠান

ঢাবি-এ ২৭তম নাজমা জেসমিন চৌধুরী স্মারক বক্তৃতানুষ্ঠান

28
0
SHARE

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউটের প্রয়াত শিক্ষক ড. নাজমা জেসমিন চৌধুরী স্মরণে ২৭তম স্মারক বক্তৃতা গতকাল ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭ সঙ্গলবার বিকেলে ইনস্টিটিউটের মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এতে ‘‘ঈশ্বর কণিকার আবিস্কার: পরিচিত মহাবিশ্বের ভবিষ্যৎ’’ শীর্ষক  স্মারক বক্তৃতা প্রদান করেন বিশিষ্ঠ পদার্থ বিজ্ঞানী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক অজয় রায়। উপস্থিত ছিলেন এমিরিটাস অধ্যাপক ড. সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী সহ ইনস্টিটিউটের শিক্ষকবৃন্দ। অনুষ্ঠানে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক ইফফত আরা নাসরীন মজিদ। বক্তৃতা অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ইনস্টিটিউটের প্রভাষক শর্মি বড়–য়া।
স্মারক বক্তৃতায় ঈশ্বর কণিকার আবিস্কারের পরিপ্রেক্ষিতে পদার্থ বিজ্ঞানের গভীরতম তাৎপর্য বিশ্লেষণ করে ড. অজয় রায় পরিচিত মহাবিশ্বের ভবিষ্যৎ নিয়ে এক আকর্ষণীয়  প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। পরিশেষে তিনি ধর্মান্ধতা আর বিজ্ঞানের পরস্পর সংঘাতের কথা উল্লেখ করে বিজ্ঞানীদের দ্বিধাহীন অগ্রযাত্রার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন। তরুণ শিক্ষার্থীরা তাতে উদ্বুদ্ধ হবে নি:সন্দেহে।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান সভাপতির বক্তব্যে প্রয়াত শিক্ষক ড. নাজমা জেসমিন চৌধুরীর স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, তিনি তার লেখনীর মাধ্যমে কঠিন বিষয় নিয়ে অসাধারণ সব গবেষণা সহজ ও সাবলীলভাবে উপস্থাপন করেছেন। অধ্যাপক অজয় রায়ও তেমনি মহাবিশ্বের বিভিন্ন জটিল বিষয়কে সহজভাবে আমাদের সামনে উপস্থাপন করেছেন। তিনি তাঁর আলোচনার মধ্য দিয়ে এ বিষয়ে লেখক ও বিজ্ঞানীদের নতুনভাবে ভাবার সুযোগ সৃষ্টি করে দিয়েছেন।
ইনস্টিটিউটে বাংলা ভাষায় অধ্যয়নরত যুক্তরাষ্ট্রের শিক্ষার্থী ডেনিয়্যাল বাংলা ভাষায় বাংলাদেশে তার অভিজ্ঞতা বর্ণনা করেন।  পরে উপাচার্য তাকে মেডেল পরিয়ে দেন এবং সার্টিফিকেট প্রদান করেন।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY