ঢাবি-এ “Chikungunya- A Potentially emerging epidemic in Bangladesh” শীর্ষক সেমিনার

ঢাবি-এ “Chikungunya- A Potentially emerging epidemic in Bangladesh” শীর্ষক সেমিনার

13
0
SHARE

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগে ‘বাংলাদেশ অনুজীব বিজ্ঞানী সমিতি’ এবং ‘বাংলাদেশ বিজ্ঞান পরিষদ’ এর যৌথ উদ্যোগে “Chikungunya- A Potentially emerging epidemic in Bangladesh” শীর্ষক এক সেমিনার আজ ১০ আগস্ট ২০১৭ বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে সেমিনারের উদ্বোধন করেন।
বাংলাদেশ বিজ্ঞান পরিষদের সহ-সভাপতি অধ্যাপক ড. কাজী আবদুল ফাত্তাহ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন বাংলাদেশ অণুজীব বিজ্ঞানী সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. মাহফুজুল হক। সেমিনারে মূল প্রতিপাদ্য নিয়ে বক্তব্য উপস্থাপন করেন অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. জামালুন্নেসা। আরও বক্তব্য রাখেন প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক হুমায়ুন রেজা খান, বাংলাদেশ বিজ্ঞান পরিষদের ফেলো মেজর জেনারেল (অবঃ) অধ্যাপক ড. এ এস এম মতিউর রহমান।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, সমাজের বিভিন্ন ধরণের সমস্যা সমাধানে এগিয়ে আসা বিশ্ববিদ্যালয়ের সংশ্লিষ্ট বিভাগের শিক্ষক এবং গবেষকদের দায়িত্ব। এই সেমিনারটিও সে ধরণের একটি উদ্যোগ। চিকনগুনিয়ার অস্বাভাবিক পরিস্থিতি প্রতিরোধে সমাজে সচেতনতা সৃৃষ্টি করার জন্য সেমিনারটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে উপাচার্য আশাবাদ ব্যক্ত করেন। মহানগরীর অন্যান্য স্থানে যেমন সচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে তেমনি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসেও আমাদের সচেতন হতে হবে এবং এ বিষয়ে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে। বিশেষত: বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলোতে যেন এডিস মশার বংশবৃদ্ধি না হয় সেদিকে সতর্ক থাকতে হবে। তাহলে শিক্ষার্থীরা নির্বিঘেœ তাদের পড়াশোনা চালিয়ে যেতে পারবে। সর্বোপরি সবাইকেই সচেতন হতে হবে এজন্য যে এর কোন নির্দিষ্ট ঔষধ নেই। উপাচার্য আরও বলেন, আমাদের সমাজে বাড়িয়ে বলার প্রবণতা লক্ষ্য করা যায়, তাই সচেতনতা সৃষ্টিতে কোন অপ-তথ্য বা ভুল তথ্য যেন না দেওয়া হয় সেদিকে সকলকে সচেতন হওয়া দরকার। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মানুষের বিশ্বাস ও আস্থার জায়গায় অবস্থান করে তাই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বস্তুনিষ্ঠ ও সঠিক তথ্য প্রচার করতে হবে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY