ঢাবি-এ বর্ণাঢ্য আয়োজনে বাংলা নববর্ষ উদযাপিত

ঢাবি-এ বর্ণাঢ্য আয়োজনে বাংলা নববর্ষ উদযাপিত

61
0
SHARE

“মুছে যাক গ্লানি ঘুচে যাক জরা, অগ্নিস্নানে শুচি হোক ধরা” মর্মবাণী ধারণ করে ঐক্য ও অসা¤প্রদায়িকতার ডাক দিয়ে ‘আনন্দলোকে মঙ্গলালোকে বিরাজ সত্য সুন্দর’ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে উদযাপিত হয়েছে বাংলা নববর্ষ। আজ ১৪ এপ্রিল ২০১৭ (১লা বৈশাখ ১৪২৪) সকাল ৯টায় বিশ্ববিদ্যালয় চারুকলা অনুষদ প্রাঙ্গণ থেকে নববর্ষ আবাহনের বর্ণময় আকর্ষণ মঙ্গল শোভাযাত্রার উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক। শোভাযাত্রায় অংশ নেন বাংলাদেশ সরকারের সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এমপি। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের নেতৃত্বে শিক্ষক শিক্ষার্থীসহ ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকল শ্রেণী পেশার মানুষের সম্মিলনে শোভাযাত্রাটি শাহবাগ মোড় হয়ে হোটেল রূপসী বাংলা থেকে টিএসসি হয়ে চারুকলায় এসে শেষ হয়। এছাড়া, বাঙালির উৎসবের এ শোভাযাত্রায় অংশ নিয়েছেন অনেক বিদেশি পর্যটকও।

বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারসহ সকলকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা বলেন, “লেখাপড়ার পাশাপাশি সুস্থ সংস্কৃতি চর্চার প্রয়োজন। অপসংস্কৃতি ও সব ধরনের মন্দ কাজ থেকে বিরত থাকতে সাংস্কৃতিক শিক্ষারও কোন বিকল্প নেই। উপাচার্য আরও বলেন, “পহেলা বৈশাখে মঙ্গল শোভাযাত্রায় সুশৃঙ্খলভাবে অংশগ্রহণ করার মাধ্যমে বাঙালির জাতির ইতিহাস ঐতিহ্য ধরার পাশাপাশি দেশ ও বিশ্ববাসীর জন্য মঙ্গল কামনা করা হয়। এ বছর থেকে বাংলা নববর্ষে ভিন্ন একটি মাত্রা যোগ হয়েছে। ইউনেস্কো মঙ্গল শোভাযাত্রাকে বিশ্বের কাছে স্বীকৃতি দিয়েছে। এতে করে আমাদের দায়িত্ব অনেক বেড়ে গিয়েছে। নববর্ষ সবার জীবনে সুখ, শান্তি, সমৃদ্ধি বয়ে আনুক- এটাই কামনা করি।”

বিশ্ববিদ্যালয় সংগীত বিভাগের উদ্যোগে কলাভবন বটতলায় সকাল ৮টায় সংগীতানুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন।

এছাড়া, বিশ্ববিদ্যালয় বিজনেস স্টাডিজ অনুষদ প্রাঙ্গণে দিনব্যাপী এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, প্রো-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মো: আখতারুজ্জামান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো: কামাল উদ্দীন, বিজনেস স্টাডিজ অনুষদের ডিন অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলামসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY